Home > বিশ্বজুড়ে বাংলাদেশ > সৈয়দকে মালেশিয়ায় আগুনে পুড়িয়ে হত্যা
Exif_JPEG_420

সৈয়দকে মালেশিয়ায় আগুনে পুড়িয়ে হত্যা

দুর্গাপুর প্রতিনিধি : মালেশিয়া প্রবাসী মুদি ব্যবসায়ী দুর্গাপুরের সৈয়দ আব্দুল মন্ডল (৩৫) কে আগুনে পুড়িয়ে হত্যা করেছে দুবৃর্ত্তরা। তিনি দুর্গাপুর উপজেলার রাতুগ্রামের আব্দুল কাদের মন্ডলের ছেলে। রোববার বাংলাদেশ সময় রাত ৯টা ও মালেশিয়া সময় ১২টার দিকে মালেশিয়ার বানথিং প্রদেশে এঘটনা ঘটে।

ওই ঘটনায় দুর্গাপুরের রাতুগ্রামে বইছে শোকের মাতম।নিহতের শ্যালক আব্দুর রাজ্জাক মালেশিয়া থেকে জানান, রোববার রাতে মালেশিয়া সময় রাত ১২টার দিকে মুদি ব্যবসায়ী সৈয়দ আব্দুলকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যা করে একটি সমুদ্র সৈকতের ধারে ফেলে রেখে যায় দুর্বৃত্তরা। পরে স্থানীয় ২জন লোক সমুদ্র ধারে আগুন জ্বলছে দেখে পুলিশে খবর।

পরে পুলিশ এসে পুড়ে যাওয়া মরদেহ উদ্ধার করে। পরে সোমবার সকালে জরুরী কাজে দুলা ভাইয়ের মোবাইলে ফোন দিলে তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। এসময় তার বাসায় গিয়ে দেখি লাশসহ পুলিশ ঘটনাস্থল ঘিরে রেখেছে। সেখানে লাশ আগুনে পুড়ে বিকৃতি হয়ে যাওয়ায় হাতে স্বর্ণের আংটি দেখে নিশ্চিত করি এটি দুলাভাই সৈয়দ।

নিশ্চিত হওয়ার পরে পুলিশ ময়নাতদর্ন্তের লাশ জন্য মর্গে পাঠায়। এসময় তার সাথে কাজ করা কয়েক জনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদের পর ছেড়ে দেয় পুলিশ। তিনি আরো জানান, তার দুলাভাইকে এমন ভাবে আগুনে পুড়িয়ে হত্যা করা হয়েছে যে তাকে শনাক্ত করা যাচ্ছিলো না। পরে তার হাতে পরিহিত আংটি দেখে নিশ্চিত করা হয়।

নিহতের স্বজনরা জানান, সৈয়দ আব্দুল ২০১০সালে কাজের উদ্দেশ্যে মালেশিয়া পাড়ি জমান। সেখানে গিয়ে তিনি একটি মুদি দোকানে শ্রমিক হিসেবে কাজ শুরু করেন। সর্বশেষে তিনি গত ১৫দিন আগে ওখানে একটি মুদি দোকান কিনে নিজেই ব্যবসা শুরু করেন।

ঘটনার দিন রোববার রাত ৮টা ৪৯মিনিটে হঠাৎ সৈদয় তার বাবার কাছে ফোন করে দুর্গাপুর থানার ওসি’র ও উকিলের ফোন নাম্বার চায়। বাবা আব্দুল কাদের ফোন কেটে থানার ওসি ও উকিলের নাম্বার সংগ্রহ করে ৫মিনিট পরে ফোন দিলেই ছেলে সৈয়দের নাম্বার বন্ধ পায়।

এরপর সোমবার সকালে মালেশিয়ায় কর্মরত নিহত সৈয়দের শ্যালক আব্দুর রাজ্জাক তার দুলা ভাই সৈয়দকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যা করেছে বলে বাসায় খবর দেয়। ঘটনার শোনার পরপরই এলাকায় নেমে আসে মোকের মাতম। স্বজনদের কান্নার আহাজারিতে ভারী হয়ে উঠে পরিবেশ।

নিহতের বাবা আব্দুল কাদের জানান, ৩বছর আগে কে বা কারা তার মেজো ছেলেকে হত্যা করে। এবার আবারও তার বড় ছেলেকে ষড়যন্ত্র করে মালেশিয়ায় আগুনে পুড়িয়ে হত্যা করলো। আর ছোট ছেলে বর্তমানে রোমানিয়া থাকেন বলে জানান। তিনি তার ছেলের লাশ ফিরেই আনতে সরকারের সহযোগিতা চান বলে জানান। এবিষয়ে দুর্গাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) পরিমল কুমার চক্রবর্তী জানান, এরকম ঘটনা এখন পর্যন্ত খবর পাই নি। এবং কেউ এবিষয়ে অভিযোগ করেনি।

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Translate »
শিরোনামঃ