Home > শিক্ষাঙ্গন > ফলিত রসায়ন বিভাগের পুনর্মিলনী ২৪-২৫ ডিসেম্বর

ফলিত রসায়ন বিভাগের পুনর্মিলনী ২৪-২৫ ডিসেম্বর

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী : ১৯৬৭ সালের ১ অক্টোবর প্রতিষ্ঠিত হয়ে ৫০ বছরে পদাপর্ণ করেছে বিভাগটি। তৎকালীন বিভাগীয় প্রধান আব্দুল হালিম চৌধুরীর হাত ধরে যেটির শুরু, সেই বিভাগটি বহু চড়াই-উৎরাই পেরিয়ে দক্ষ প্রকৌশলী তৈরি করে যাচ্ছে। এখান থেকে পাস করে বহু প্রকৌশলী দেশে-বিদেশে দক্ষতার সঙ্গে কাজ করে যাচ্ছেন।

এরই ধারাবাহিকতায় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ফলিত রসায়ন ও রসায়ন প্রকৌশল বিভাগ সূবর্ণ জয়ন্তী উৎসব ও অ্যালামনাই পুনর্মিলনী আয়োজন করতে যাচ্ছে। নানা অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে আগামী ২৪-২৫ ডিসেম্বর দুই দিনব্যাপি উৎসব উদযাপন করা হবে বলে জানিয়েছেন বিভাগের সভাপতি ও উৎসব কমিটির আহ্বায়ক ড. দিল আফরোজ বেগম।

বিভাগের সূচনালগ্ন থেকে সকল শিক্ষার্থীকে উৎসবে অংশ নেওয়ার আমন্ত্রণ জানিয়ে তিনি বলেন, ‘‘অক্টোবরে অফিসে ব্যস্ততা থাকায় আমরা সূবর্ণ জয়ন্তী অনুষ্ঠান ডিসেম্বরের ২৪ ও ২৫ তারিখে উদযাপন করব। অনুষ্ঠানে যোগ দিতে রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে। আগামী ১৫ নভেম্বর পর্যন্ত রেজিস্ট্রেশন করা যাবে।’’

রেজিস্ট্রেশনের জন্য রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ফলিত রসায়ন ও রসায়ন প্রকৌশল অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের যারা আজীবন সদস্য নন, তাদের জনপ্রতি ২৫৫০ টাকা, স্বামী-স্ত্রী ৩৭৭৪ টাকা এবং পাঁচ বছরের উপরে প্রতি সন্তানের জন্য ১০২০ টাকা জমা দিতে হবে।

আর যারা অ্যালামনাইয়ের আজীবন সদস্য, তাদের জনপ্রতি ১৫৩০ টাকা, স্বামী-স্ত্রী ২৭৫৪ টাকা এবং পাঁচ বছরের উপরে প্রতি সন্তানের জন্য ১০২০ টাকা জমা দিতে হবে। ২০৪০ টাকা জমা দিয়ে অ্যালামনাইয়ের আজীবন সদস্য হতে পারবে। উৎসবে চলতি শিক্ষার্থীদের জন্য ১০০০ টাকা ফি ধরা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে এ সংক্রান্ত একটি বিজ্ঞপ্তিতে বিস্তারিত দেওয়া আছে।

অনুষ্ঠান সূচির বিষয়ে তিনি জানান, ২৪ ডিসেম্বর সকাল ১০টায় জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে দুই দিনব্যাপি অনুষ্ঠান শুরু হবে। এরপর বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজী নজরুল ইসলাম মিলনায়তনে আলোচনা সভায় মিলিত হবে। বিভাগের সভাপতির সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি থাকবেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আব্দুস সোবহান। উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. আনন্দ কুমার সাহাসহ প্রাক্তন শিক্ষকরা বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন। সভা শেষে মধ্যহ্ন বিরতি। বিরতির পর বিকেলে স্মৃতিচারণ এবং সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা অনুষ্ঠিত হবে। পরে সবাই মিলে রাতের খাবারে যোগ দেবেন।

দ্বিতীয় দিন সকাল সাড়ে ৯টায় অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হবে। এরপর প্রাক্তন ও নতুন শিক্ষার্থীদের মতবিনিময়। মতবিনিময়ের পরে স্মৃতিচারণে মিলিত হবে সবাই। এরপর বিকেলে সবাই মিলে ক্যাম্পাস প্রদর্শনের মাধ্যমে দুই দিনব্যাপি অনুষ্ঠানের সমাপ্তি হবে।

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

শিরোনামঃ